রানের চিপায় চুলকানি দূর করার ঘরোয়া উপায় - রানের চিপায় চুলকানি দূর করার ক্রিম

প্রিয় পাঠক আপনাদেরকে জানাই আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা আমাদের ওয়েবসাইডে এসে আপনার সমস্যার সমাধান খুঁজে পাওয়ার জন্য। আমাদের অনেকেরই রানের চিপায় চুলকানি হয় সেই কারণে আমরা রানের চিপায় চুলকানি দূর করার ক্রিম খুঁজে থাকি আজকের আর্টিকেলটি তাদের জন্য।
রানের চিপায় চুলকানি
আমাদের নিজেদের অসচেতনতার কারণে রানের চিপায় চুলকানি হয় যার ফলে সেখানে ঘা হয়ে যাওয়ার মত সমস্যা দেখা দেয়। আপনারা যারা রানের চিপায় চুলকানি দূর করার উপায় ও ক্রিম খুঁজছেন আজকের আর্টিকেলটি তাদের জন্য। আজকের আর্টিকেলটি আপনি মনোযোগ সহকারে পড়লেন আপনি আপনার সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন।

রানের চিপায় চুলকানি কেন হয়

রানের চিপায় চুলকানি হাওয়ার অন্যতম কারন হচ্ছে স্ক্যাবিস নামক এক প্রকার চর্মজনিত রোগ যা sarcoptes scabei  নামক জিবানুদ্বারা চুলকানি সংগঠিত হয় ।রানের চিপায় চুলকানি ও কালো দাগ হওয়া পেছনে মূলত আমরা নিজেরাই দায়ী। আমাদের নিজেদের অপরিষ্কার ও অপরিচ্ছন্নতার কারণেই আমাদের রানের চিপাই চুলকানিও কালো দাগ সৃষ্টি হতে পারে। যেকোনো ধরনের চুলকানি একটি ছোঁয়াচে রোগ।

এই চুলকানি একজনের থেকে আরেকজনের সৃষ্টি হতে হয়। আপনারা যারা এ সকল সমস্যায় ভুগছেন তারা সবসময় আপনার নিজেকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। ব্যবহৃত পোশাক পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে এবং ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে দিতে হবে। সহবাসের পরে অবশ্যই ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।  আর যেহেতু চুলকানি সেজন্য একজনের ব্যবহৃত জিনিস অন্যজন ব্যবহার করা যাবে না। রানী চিপাই চুলকানি আমারও হয়েছিল আমি অনেক ডাক্তার দেখিয়েছি এবং চিকিৎসা গ্রহণ করেছি কিন্তু ভালো হয়নি।

পরে আমি একজন ডাক্তারকে দেখাই এবং তিনি আমাকে পরামর্শ দেন সবসময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকতে এবং একটি ক্রিমের নাম বলে দেন সেটি ব্যবহার করার ফলে আমি সেই চুলকানি থেকে পেয়েছি। সেই ক্রিমটির নাম হলঃcondirox .আপনাদের যদি কারো এমন সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই সর্বপ্রথম ডাক্তার দেখাবেন এবং ওষুধ সেবন করলে রানের চিপায় ভালো হয়ে যায়। তাহলে আপনারা বুঝতে পারলেন যে রানের চিপায় চুলকানি কেন হয়।

মেয়েদের রানের চিপায় চুলকানি

বিভিন্ন কারণে মেয়েদের রানের চিপায় চুলকানি হতে পারে। মেয়েদের রানের চিপায় চুলকানি হওয়ার মূল কারণগুলো হলো আঁটোসাঁটো বা টাইট জামাকাপড়া, অন্তবাস বা সহবাস করার পর ভালোভাবে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন না হলে , যৌনাঙ্গে চুল কাটার সময় গোড়ায় সংক্রমণ হলে , যখন ত্বকের ভাগে ভাগে ঘামের ফলে ঘর্ষণ সৃষ্টি হয় তখন চুলকানি সৃষ্টি হতে পারে।

যোনির চারপাশে ফুসকুড়ি হওয়ার সম্ভাব্য কারণগুলো হলো কন্টাক্ট ডার্মাটাইটিস, ভ্যাজাইনাইটিস এবং বার্থোলিনের সিস্ট। মেয়েদের বিভিন্ন অসচেতনতার কারণে তাদের রানের চিপায় চুলকানি হতে পারে। সেজন্য সবসময় নিজেকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে এবং অন্যের ব্যবহৃত কোন পোশাক ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

রানের চিপায় চুলকানি দূর করার ক্রিম

চুলকানি প্রায় সবারই কমবেশি হয়ে থাকে। তবে বিভিন্ন জায়গায় চুলকনি হয়ে থাকে । তবে তার মধ্যে একটি অস্বাভাবিক জায়গা হচ্ছে রানের চিপাই চুলকানি অর্থাৎ সহজ ভাষায় বলতে গেলে দুই পায়ের মাঝখানে অর্থাৎ যৌনাঙ্গের আশেপাশে যদি চুলকানি হয়ে থাকে তাহলে আজকের পোস্টটি আপনার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

আমাদের আজকের আর্টিকেলের মূল আলোচ্য বিষয় রানের চিপায় চুলকানি দূর করার ক্রিম সম্পর্কে। বিশেষ করে আপনার যদি এই ধরনের চুলকানি হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই একজন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ  ডাক্তকে দেখাতে হবে এবং তার পরামর্শ অনুযায়ী ঔষধ গ্রহণ করতে হবে। তারপরেও আমরা আপনাদের সুবিধার জন্য জানানোর চেষ্টা করেছি রানের চিপায় চুলকানি দূর করার ক্রিম সম্পর্কে।
চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী রানের চিপায় চুলকানি দূর করার জন্য দুইটি ক্রিম নাম উল্লেখ করেন ক্রিম দুটি হল 
  • পেভিসন 
  • ডারমাসল এন
রানের চিপায় চুলকানি দূর করার জন্য এই দুটি ক্রিম ব্যবহার করা হয়। আশা করা যায় এই দুটি ক্রিম ব্যবহার করলে আপনার যদি রানের চিপায় চুলকানি হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই ভালো হয়ে যাবে ইনশাল্লাহ। আর যদি আপনার রানের চিপায় অতিরিক্ত পরিমাণে চুলকানির দেখা দেয় তাহলে অবশ্যই আপনি চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ক্রিম গুলো ব্যবহার করবেন।

তাছাড়াও আরো কিছু ক্রিম রয়েছে যেগুলো আপনি ব্যবহার করলে আপনি আপনার রানের চিপায় চুলকানি দূর করতে পারবেন। সেই ক্রিম গুলো হলোঃ
  • Licerin Cream
  • Fungin Cream
  • Dermasol N Cream
  • Bet CL Cream
  • Ezex Cream
  • Pevisone Cream
  • Fungidal Cream

রানের চিপায় চুলকানি দূর করার মলম

চুলকানি প্রায় সবারই কমবেশি হয়ে থাকে। তবে বিভিন্ন জায়গায় চুলকনি হয়ে থাকে । তবে তার মধ্যে একটি অস্বাভাবিক জায়গা হচ্ছে রানের চিপাই চুলকানি অর্থাৎ সহজ ভাষায় বলতে গেলে দুই পায়ের মাঝখানে অর্থাৎ যৌনাঙ্গের আশেপাশে যদি চুলকানি হয়ে থাকে তাহলে আজকের পোস্টটি আপনার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের আজকের আর্টিকেলের মূল আলোচ্য বিষয় রানের চিপায় চুলকানি দূর করার মলম সম্পর্কে।

বিশেষ করে আপনার যদি এই ধরনের চুলকানি হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই একজন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ  ডাক্তকে দেখাতে হবে এবং তার পরামর্শ অনুযায়ী ঔষধ গ্রহণ করতে হবে। তারপরেও আমরা আপনাদের সুবিধার জন্য জানানোর চেষ্টা করেছি রানের চিপায় চুলকানি দূর করার মলম সম্পর্কে।চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী রানের চিপায় চুলকানি দূর করার জন্য দুইটি মলম নাম উল্লেখ করেন ক্রিম দুটি হল 
  • পেভিসন 
  • ডারমাসল এন
রানের চিপায় চুলকানি দূর করার জন্য এই দুটি মলম ব্যবহার করা হয়। আশা করা যায় এই দুটি মলম ব্যবহার করলে আপনার যদি রানের চিপায় চুলকানি হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই ভালো হয়ে যাবে ইনশাল্লাহ। আর যদি আপনার রানের চিপায় অতিরিক্ত পরিমাণে চুলকানির দেখা দেয় তাহলে অবশ্যই আপনি চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত মলম গুলো ব্যবহার করবেন।

তাছাড়াও আরো কিছু মলম রয়েছে যেগুলো আপনি ব্যবহার করলে আপনি আপনার রানের চিপায় চুলকানি দূর করতে পারবেন। সেই মলম গুলো হলো 
  • Licerin Cream
  • Fungin Cream
  • Dermasol N Cream
  • Bet CL Cream
  • Ezex Cream
  • Pevisone Cream
  • Fungidal Cream

রানের চিপায় চুলকানির ঔষধ

অনেক সময় নানা কারণে আমাদের রানের চিপায় চুলকানি শুরু হয়ে থাকে। প্রাথমিক অবস্থায় এ চুলকানি দূর করার জন্য আপনি পেভিসন ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন। এটি প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার পূর্বে এই ক্রিমটি আক্রান্ত স্থানে লাগিয়ে মেসেজ করুন। আশা করি আপনার রানের চিপায় চুলকানি দূর হয়ে যাবে। ক্রিম ব্যবহার করার পরেও যদি আপনার চুলকানি অতিরিক্ত পরিমাণে বেড়ে যায় তাহলে আপনি অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন।

সাধারণত যেকোনো ওষুধে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়ে যেকোন ওষুধ সেবন করবেন না। চিকিৎসগণ আক্রান্ত স্থানের অবস্থান দেখে ওষুধ দিয়ে থাকে। চুলকানি দূর করার একটি ওষুধ হল Deslor 5mg অনেক চিকিৎসকগণ এই ওষুধটি দুই বেলা খাবারের পর খাওয়ার অনুমতি দিয়ে থাকে।

সতর্কতা: ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ সেবন করুন। অবশ্যই যে কোন ওষুধ ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া সেবন করা উচিত না।

রানের চিপায় চুলকানি দূর করার ঘরোয়া উপায় 

রানের চিপায় চুলকানি দূর করার ক্রিম এর নাম অনেকে জানতে চাই। কিন্তু কিছু রানের চিপায় চুলকানি দূর করার ঘরোয়া উপায় রয়েছে। যেগুলো অনুসরণ করলে আপনার রানের চিপার চুলকানি দূর হয়ে যেতে পারে। কোন ধরনের ওষুধ বা ক্রিমের ব্যবহার ছাড়াই। চলুন জেনে নিই এই সম্পর্কে বিস্তারিত।

রানের চিপায় চুলকানি দূর করার ঘরোয়া উপায় সমূহঃ

নারিকেল তেলঃ রানের চিপায় যে জায়গায় চুলকানি হয় সে জায়গায় আপনি নারিকেল তেল ব্যবহার করতে পারেন। চুলকানির স্থানে কিছু সময় ধরে নারিকেল তেল লাগিয়ে রাখুন। দেখবেন চুলকানি দূর হয়ে যাবে খুব দ্রুত।

লেবুর রসঃ চুলকানির স্থানে লেবুর রস লাগিয়ে রাখুন। লেবুর রস চুলকানি দূর করতে খুব সাহায্য করে।
বরফঃ রানের চিপার অতিরিক্ত চুলকানি দূর করার জন্য আপনি ঠান্ডা বরফ ব্যবহার করতে পারেন। কিছুক্ষণ ঠান্ডা বরফ আক্রান্ত স্থানে ধরে থাকলে দেখবেন চুলকানি দূর হয়ে যাচ্ছে। 

অ্যালোভেরা জেলঃ চুলকানি দূর করার জন্য অ্যালোভেরা জেলের গুরুত্ব অপরিসীম। আক্রান্ত স্থানে এলোভেরা জেল লাগিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ।

সহবাস পরিত্যাগঃ রানের চিপায় চুলকানি থাকা অবস্থায় সহবাস থেকে দূরে থাকুন।

ভেজা কাপড় এড়িয়ে চলুনঃ রানের চিপায় চুলকানি দূর করার জন্য অবশ্য আপনাকে ভেজা কাপড় এড়িয়ে চলতে হবে অর্থাৎ বেশি সময় ধরে থাকবেন ভেজা কাপড় পড়ে থাকবেন না।

রানের চিপে চুলকানি দূর করার জন্য উপরোক্ত নিয়মগুলো অনুসরণ করার চেষ্টা করবেন। এবং অতিরিক্ত চুলকানি হলে এবং দ্রুত চুলকানি থেকে মুক্তি পেতে চাইলে রানের চিপায় চুলকানি দূর করার ক্রিম পেভিসন ব্যবহার করতে পারেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url