গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায়

প্রিয় পাঠক আপনি গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে জানতে চান। বিভিন্ন ধরনের ক্রিম বা প্রসাধনী ব্যবহার করেও স্থায়ী সমাধান করতে পারছেন না। তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এ আর্টিকেলে গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় এবং বগলের কালো দাগ দূর করার উপায়, গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ কেন হয়, গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম সহ বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।
গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায়
আশা করছি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়লে গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে জানতে পারবেন। আপনাদের সুবিধার্থে গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার প্রয়োজনীয় তথ্য এই আর্টিকেলে তুলে ধরা হয়েছে। তাহলে দেরি না করে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পরে ফেলুন।

ভূমিকা

ফর্সা ও দাগ হীন ত্বক পেতে আমরা কত কিছুই না করে থাকি। কিন্তু বহু চেষ্টার পরেও শরীরের কিছু কিছু অংশ কালো দাগ থেকে যায় যা দেখতে খুবই খারাপ লাগে। সাধারণত রোদে পড়ার কারণে ত্বকের বিভিন্ন অংশ কালো হয়ে যায়। যা নামি দামি ক্রিম বা বিভিন্ন পরিচর্যা করেও এর থেকে সহজে মুক্তি পাওয়া যায় না। শরীরের সবচেয়ে বেশি ঘাড় ও কনুইয়ে কালো দাগ দেখা যায়। ঘাড়ে ও গলার ত্বক কালো হয়ে যাওয়া কালো ছোপ পড়া দাগ অনেকের কাছে খুবই বিরক্তিকর একটি সমস্যা।


ঘাড়ে ও গলার কালো দাগের কারণে অনেকেই পছন্দের পোশাক করতে পারে না। সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি, ধুলাবালি ও ময়লা ঘামের প্রভাবে ঘাড় ও কোন এর ত্বক কালো হয়ে যায়। গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় রয়েছে যেগুলো ব্যবহার করে খুব সহজেই ঘাড়ের কালো দাগ দূর করা সম্ভব।

গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ কেন হয়

বিভিন্ন কারণে গলা ও ঘাড়ের পেছনে কালো দাগ হয়ে থাকে। বিশেষজ্ঞদের মতে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষা এর নাম অ্যাাকানথোসিস নাইগ্রিক্যানস। ঘাড়ে কালো দাগ হওয়ার পেছনে রয়েছে মূলত দুইটি কারণ থাকে। প্রথমত সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি ও দ্বিতীয়ত দূষণ। এই দুটি কারণেই ত্বকের বিভিন্ন অংশে কালো দাগ হয়ে যায়।


বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ৪০ ঊর্ধ্ব নারীদের মধ্যে ৮০ শতাংশ গলা ও ঘাড়ের কালো দাগের সমস্যা ভুগে থাকেন। এর পাশাপাশি ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা থাকতে পারে। ঘাড়ে কালো দাগ হওয়ার পিছনে আরও কিছু কারণ রয়েছে। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক ঘাড়ে কালো দাগ কেন হয় সে সম্পর্কে বিস্তারিত।
  • সূর্যের প্রচন্ড তাপে ত্বকে সানবার্ন হয়ে যাওয়ার ফলে গলা ও ঘাড়ে কালো দাগ হতে পারে।
  • ধাতব মেটালিক মোটা চেইন ব্যবহারের ফলে গলা ও ঘাড়ের ত্বক খসখসে হয়ে কালো দাগ পড়ে যায়।
  • অত্যাধিক ওজন মূলত গলা ও ঘাড়ে কালো দাগের জন্য দায়ী। এছাড়াও জিনগত কারণেও এ সমস্যা হয়ে থাকে।
  • চুল কালার করা রাসায়নিক পদার্থ গলা ও ঘাড়ে লেগে গেলে ত্বক জ্বালাপোড়া করে এরপরে আস্তে আস্তে কালো দাগ পড়ে যায়।
  • অতিরিক্ত কেমিক্যালযুক্ত নিম্নমানের পাউডার, লোশন, পারফিউম স্প্রে, স্টোরেডযুক্ত ক্রিম ব্যবহারেও ত্বকের কালো দাগ হয়।
  • এছাড়াও যাদের ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হাইপারথাইরয়িডজম ইত্যাদি বিভিন্ন সমস্যা থাকলে গলা ও ঘাড়ের পাশাপাশি হাত পায়ের আঙ্গুলের ওপর, বগল ও রানের ভাজ ইত্যাদি স্থানে অস্বাভাবিক কালো দাগ হয়ে যায়।
উপরোক্ত আলোচিত বিষয়গুলোর কারণে গলা ও ঘাড়ে কালো দাগের সমস্যা বেশি দেখা যায়। তাই উপরোক্ত বিষয়গুলো মেনে চললে গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করা সম্ভব। সুতরাং ঘাড়ে ও গলার কালো দাগ এর জন্য উপরোক্ত বিষয়গুলো এড়িয়ে চলুন।

গলা ও ঘাড় ফর্সা করার উপায়

নারী পুরুষ উভয়ে গলা ও ঘাড়ের কালো দাগের সমস্যা নিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকেন। কালো দাগ দূর করার জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রসাধনী বা ক্রিম ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু ঘাড় ও গলার দাগ দূর হওয়ার পরিবর্তে এ কালচে দাগ আরো গাঢ় হয়ে যায়। কারণ এইসব প্রসাধারিত বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল রং মেশানো থাকে। তবে এ নিয়ে চিন্তার কোন কারণ নেই। তাই প্রাকৃতিক উপায়ে ঘরোয়া কিছু উপাদান দিয়ে গলা ও ঘাড় ফর্সা করতে পারবেন। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক গলা ও ঘাড় ফর্সা করার উপায়-

টকদই ও লেবুর প্যাক
  • প্রথমে দুই চামচ টক দই এর সঙ্গে এক চামচ পরিমাণ লেবুর রস মিশিয়ে ভালোভাবে পেস্ট তৈরি করে নিন।
  • এই মিশ্রণটি গলা ও ঘাড়ে লাগিয়ে ১০ মিনিট অপেক্ষা করুন।
  • এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলুন।
  • সপ্তাহে অন্তত ৩ থেকে ৪  দিন টক দই ও লেবুর প্যাক ব্যবহার করলে খুব তাড়াতাড়ি গলা ও ঘাড় ফর্সা হবে।
বেসন ও হলুদের প্যাক
গলা ও ঘরের কালো দাগ দূর করে খুব তাড়াতাড়ি ফর্সা করতে বেসন ও হলুদের প্যাক দারুন উপকারি।
  • ৩ চামচ বেসন, ১ চামচ হলুদ, ১ চামচ পরিমাণ লেবুর রস বা গোলাপ জল মিশিয়ে একটি ঘন পেস্ট তৈরি করে নিন।
  • এই পেস্ট টি ঘাড়ে এবং গলায় লাগিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট রেখে শুকিয়ে নিন।
  • এরপর হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে ভালোভাবে পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলুন।
  • সপ্তাহে দূর থেকে তিনবার গলা ও ঘাড় ফর্সা করতে এই পদ্ধতিটি অবলম্বন করুন।
আলুর রস
প্রাকৃতিক ব্লিচিং উপাদানের বৈশিষ্ট্য আছে আলু তে। যা ত্বকের পাশাপাশি গলা ও ঘাড়ের দাগ হালকা করে ফর্সা করতে সাহায্য করে। তাই একটি আলু কুচি অথবা থেতলিয়ে রস বের করে গলা ও ঘাড়ে ব্যবহার করুন। ১০ থেকে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।


আপেল সিডার ভিনেগার
আপেল সিডার ভিনেগার ত্বকে জমা হওয়া মৃত কোষ দূর করতে সাহায্য করে। ২ টেবিল চামচ পরিমাণ মতো আপেল সিডার ভিনেগার সঙ্গে সামান্য পরিমাণ পানি মিশিয়ে তুলার সাহায্যে ঘাড়ে এবং গলায় ব্যবহার করুন। কয়েক মিনিট রেখে এবং তারপরে পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলুন।

বাদাম তেল
বাদামের তেল ত্বকের যত্নে খুবই কার্যকর। বাদামের তেলে ভিটামিন ই ও ব্লিসিং এজেন্ট রয়েছে রয়েছে। এ দুটি উপাদান একসঙ্গে ত্বক উজ্জ্বল করার পাশাপাশি কালো ভাব দূর করতে সাহায্য করে। তাই সামান্য পরিমাণ বাদাম তেল ৫ মিনিট ঘাড়ে এবং গলায় ম্যাসাজ করুন। নিয়মিত বাদামের তেল ব্যবহারে খুব দ্রুত উপকার মিলবে।

উপরোক্ত আলোচনা থেকে জানতে পেরেছেন গলা এবং ঘাড় ফর্সা করার উপায় সম্পর্কে। যাদের গলা এবং ঘাড়ে কালো দাগ রয়েছে তারা উপরোক্ত পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করলে খুব সহজেই গলা ও ঘাড় ফর্সা করতে পারবেন।

গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায়

গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দেখতে খুবই বিশ্রী লাগে। এই কালো দাগ দূর করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ক্রিম এবং নানা ধরনের প্রসাধনী ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু এ সকল উপাদান ব্যবহার করেও গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করা যায় না। এটি নিয়ে অনেকেই দুশ্চিন্তায় থাকেন। কিন্তু গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে জানে না। চলুন তাহলে জেনে নেই গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

অ্যালোভেরা জেলঃ 
অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ অ্যালোভেরা জেল ত্বকের পিগমেন্টেশন কমাতে সাহায্য করে। অ্যালোভেরা জেল ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির পাশাপাশি ত্বকের কালো দাগ হালকা করতে দারুন সহায়ক। গাছের অ্যালোভেরার পাতা থেকে অ্যালোভেরা জেল বের করে নিন। এই জেল গলা এবং ঘাড়ে হালকা করে ম্যাসাজ করুন। ১০ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই পদ্ধতিটি নিয়মিত ব্যবহার করলে খুব তাড়াতাড়ি গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ চলে যাবে।

বেকিং সোডা
বেকিং সোডা ত্বকের মৃত কোষ দূর করে ত্বককে ফর্সা করতে সাহায্য করে। বেকিং সোডা ময়লা অপসারণ এর পাশাপাশি ত্বককে ভেতর থেকে পুষ্ট করতে দারুন কার্যকর। ২ থেকে ৩ চামচ বেকিং সোডার সঙ্গে পরিমাণ মতো পানি মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এরপর গলা এবং ঘাড়ে এ মিশ্রণটি ভালো করে লাগিয়ে রাখুন। হালকা স্ক্রাব করে পানি দিয়ে ধুয়ে ময়েশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহার করুন।

শসা
শসা একটি ঠান্ডা সবজি যা ত্বককে সজীব রাখে এবং শরীরকে ঠান্ডা রাখতে সহায়তা করে। একটি শসা কুচি করে কেটে অথবা ব্লেন্ডারের পেস্ট তৈরি করে নিন। আপনি চাইলে সঙ্গে কয়েক ফোটা লেবুর রস অথবা মধুও ব্যবহার করতে পারবেন। এই মিশ্রণটি গলা এবং ঘাড়ে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপরে নরমাল ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার করে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত এই পদ্ধতিটি দুই থেকে তিনবার ব্যবহার করতে পারেন।


গোলাপজল ব্যবহার করে
অনেক নারীরা টোনার হিসাবে গোলাপজল ব্যবহার করেন। গোসলের পর নিয়মিত তুলার সাহায্যে গোলাপজল ঘাড়ে ও গলায় ব্যবহার করুন। নিয়মিত এই পদ্ধতিতে ব্যবহার করলে ঘাড়ে ও গলার জমে থাকা ময়লা পরিষ্কার করে দেয় এবং এটি ঘাড় কে কখনো কালো হতে দেয় না।

নারকেল তেল
নারকেল তেল আমাদের ত্বকে পুষ্টি যোগানোর পাশাপাশি ত্বকের রোদে পোড়া ভাব দূর করতে খুবই কার্যকর। তাই নিয়মিত নারকেল তেল হাতের সাহায্যে ঘাড় ও গলায় ম্যাসাজ করুন।

মধু ও লেবুর রস
গলা এবং ঘাড়ে ত্বক উজ্জ্বল করার পাশাপাশি ময়লা দূর করতে ব্যবহার করুন মধু ও লেবুর রস। মধু ও লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে নিয়মিত গলা এবং ঘাড়ের ত্বকে ম্যাসাজ করে তারপর পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলুন ।

কাঁচা দুধ
ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে কাঁচা দুধের উপকারিতা অনেক। দুধে ল্যাকটিক এসিড থাকে যা খুব অল্প সময়ে ত্বকের কালো দাগ থেকে মুক্তি দিতে পারে। তাই গলা এবং ঘাড়ের কালো দাগের অংশে দুধ মাখিয়ে রাখুন। ১০থেকে ১৫ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত কয়েকদিন ব্যবহার করলে ত্বকের দাগ থেকে মুক্তি মিলবে।

সানস্ক্রিম লোশন
ত্বকে ঘাম ও রোদে পোড়া দাগ দূর করতে সানস্ক্রিম ব্যবহার করুন। প্রতিদিন বাহিরে যাওয়ার সময় সানস্ক্রিম ব্যবহার করুন। শুধু মুখে নয় হাত-পা ও গলায় সানস্ক্রিম ব্যবহার করুন। যার ফলে ত্বকের কালো দাগ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

টমেটো
ত্বকের যত্নে দারুন কার্যকারী উপাদান হলো টমেটো। এটি ত্বকে ব্যবহারের ফলে গলা ও ঘাড়ের দাগ  থেকে খুব সহজেই মুক্তি পাওয়া যায়। তাই টমেটো পেস্ট তৈরি করে এর সঙ্গে দুধ মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এ মিশ্রণটি গলা এবং ঘাড়ে লাগিয়ে অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে হালকা ম্যাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে এ পদ্ধতিটি ৩ বার ব্যবহার করে খুব সহজে ভালো ফলাফল পাবেন।

গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম

গলা ও ঘাড়ে কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম সম্পর্কে অনেকে জানতে চেয়েছেন। বর্তমানে বাজারে বিভিন্ন ধরনের কালো দাগ দূর করার ক্রিম রয়েছে যেগুলো নাম আমরা অনেকেই জানিনা। এছাড়াও কোন ক্রিম ব্যবহার করলে কালো দাগ দূর করা যায় সে সম্পর্কেও অনেকের ধারণা নেই। তাই আপনাদের মাঝে কয়েকটি উন্নত মানের গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম সম্পর্কে জানাবো।
  • গহাইড্রোকুইনোন ক্রিম
  • কোজিক অ্যাসিড ক্রিম
  • ভিটামিন সি সিরাম
  • রেটিনল ক্রিম
  • স্কিন সাইন ক্রিম
  • ফেয়ার এন্ড লাভলী অ্যান্টি মার্ক ফেয়ারনেস ক্রিম
  • ক্লিনিক এ্যাকনি স্যুলিউশন স্পট হিলিং জেল
  • দ্যা রিচলিফ অ্যান্টি ব্লেমিস ক্রিম

বগলের কালো দাগ দূর করার উপায়

বগলের কালো দাগ বিভিন্ন কারণে হয়ে থাকে। যার মধ্যে অন্যতম হলো টাইট পোশাক পরিধান করা। এতে কাপড়ের সঙ্গে ঘর্ষণের ফলে কালো দাগ হতে পারে। মরা কোষ জমে থাকার কারণে অনেক বগলের নিচের অংশ কালো হয়ে যায়। এছাড়াও হেয়ার রিমুভাল ক্রিম বা রেজারের মাধ্যমে দীর্ঘদিন যাবত বগল পরিষ্কার করলে বগলের ত্বকের কালচে দাগ হয়ে যায়। এ সমস্যার কারণে অনেকেই স্লিভলেস ড্রেস পরতে পারে না। তবে এই সমস্যা থেকে খুব সহজেই মুক্তি পাওয়া সম্ভব। চলুন তাহলে বগলের কালো দাগ দূর করার উপায় সম্পর্কে কিছু ঘরোয়া উপায় জেনে নেওয়া যাক।
  • বগলের ত্বকের কালচে দাগ দূর করতে লেবুর সঙ্গে চিনি মিশিয়ে চিনি গলে না যাওয়া পর্যন্ত হালকা করে ম্যাসাজ করুন। সপ্তাহে অন্তত দুই থেকে তিন দিন এই মিশ্রণটি বগলে ব্যবহার করলে খুব সহজেই কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।
  • প্রতিদিন গোসলের সময় লেবুর রস বগলের কালো হয়ে যাওয়া ত্বকে লাগিয়ে হালকা করে ঘষতে থাকুন। অল্প কিছুদিন ব্যবহারই সহজে ত্বকের কালচে দাগ চলে যাবে।
  • অলিভ অয়েলের সঙ্গে কিছুটা ব্রাউন সুগার মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এরপরে এই মিশ্রণ বগলের কালো হয়ে যাওয়া ত্বকে লাগিয়ে 10 থেকে 15 মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।
  • বগলের শেভিংয়ের পর আপেল সিডার ভিনেগার তুলোর সাহায্যে বগলে মাখিয়ে ১০ মিনিট রাখুন। সপ্তাহে অন্তত ৪ দিন এভাবে আপেল সিডার ভিনেগার বগলে কালো হয়ে যাওয়া ত্বকে লাগালে দ্রুত দাগ দূর হয়ে যাবে।
  • আলু ও শসার রস একসঙ্গে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এই মিশ্রণটি ১৫ মিনিট বগলের ত্বকে ব্যবহার করলে কালো দাগ সহজেই দূর হয়ে যায়। আলু ও শসার রস বগলের দাগ দূর করতে দারুন কার্যকর।
  • বেকিং সোডা সামান্য পানি সঙ্গে মিশিয়ে বগলের কালো অংশে ব্যবহার করলেও দ্রুত দাগ দূর হয়।
  • নারিকেল তেলে ভিটামিন ই উপাদান রয়েছে যা বগলের কালো দাগ তুলতে সহায়তা করে। তাই বগলের ত্বকে কালো দাগের জায়গায় হালকা ম্যাসাজ করে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
  • ময়দা অথবা চালের গুড়ার সঙ্গে এক চামচ টক দই মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। বগলের নিচে লাগিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট রেখে দিন। এরপর পানি দিয়ে পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলুন। কিছুদিন ব্যবহারই দেখবেন বগলের কালো দাগ দূর হয়ে উজ্জ্বল হবে।
  • ঘরোয়া উপকরণ দিয়ে একটি মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন বগলের কালো দাগ দূর করতে। এজন্য লেবুর রস, হলুদের গুড়া, ও সামান্য পরিমাণে ময়দার গুঁড়ো মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এ পেস্ট বগলের ত্বকে ১০ থেকে ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। এর ফলে বগলের কালো দাগ দূর হওয়ার পাশাপাশি বগলের ত্বক উজ্জ্বল হতে সহায়তা করে।
  • চন্দনের গুড়া গোলাপ জলের সঙ্গে মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। এবার বগলের নিচে লাগিয়ে ১০ মিনিট রেখে দিন। শুকে গেলে হালকা স্ক্রাব করে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে কিছুদিন ব্যবহার করলে দ্রুত ভালো ফলাফল পাবেন।

শেষ কথা

প্রিয় বন্ধুরা উপরোক্ত আলোচনা থেকে জানতে পেরেছেনগলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য। আজকেরে আর্টিকেলে গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় এর পাশাপাশি বগলের কালো দাগ দূর করার উপায়, গলা ও ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম, গলা ও ঘাড় ফর্সা করার উপায় সহ বিস্তারিত তথ্য আলোচনা করেছি। সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়লে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন এবং পরে উপকৃত হবে।

আপনাদের সুবিধার্থে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। আজকের আর্টিকেলটি পড়ে যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করবেন। এ ধরনের আরো প্রয়োজনীয় মুলক তথ্য পেতে নিয়মিত আমার লেখা আর্টিকেল পড়ুন। সম্পন্ন আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url