চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায়

প্রিয় পাঠক আপনি কি চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন। আজকে এই আর্টিকেলে আপনাদের চোখের নিচে কালো দাগ হওয়ার কারণ, চোখের নিচে কালো দাগ কোন রোগের লক্ষণ, চোখের নিচে কালো দাগ কমানোর উপায় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাই সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়লে চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে জানতে পারবেন।
চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায়
চোখে সৌন্দর্য নষ্ট করে দেয় ডার্ক সার্কেল বা কালো দাগ। আশা করি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়লে চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন। আপনাদের সুবিধার্থে ডার্ক সার্কেল বা চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার বিভিন্ন উপায় তুলে ধরা হয়েছে। তাই দেরি না করে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ে ফেলুন

চোখের নিচে কালো দাগ হওয়ার কারণ

বর্তমান সময়ে চোখের নিচে কারা দাগ হয় একটি কমন সমস্যা। রাত জাগা অতিরিক্ত ক্লান্তির ফলে চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে যায়। এছাড়া বিভিন্ন পারপার্শ্বিক কারণ ও রোগের লক্ষণের কারণেও চোখের নিচে কালো দাগ সৃষ্টি হয়ে থাকে। চোখের নিচে কালো দাগ হওয়া চিকিৎসা বিজ্ঞানের পরিভাষায় পেরিঅরবিটাল অথবা আনফ্রাঅরবিটাল আন বা পিগমেন্টেশন বা ডার্কেনিং বলা হয়। চোখের নিচে কালো দাগ বা ডার্ক সাইকেল নিয়ে অনেকেই বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েন।


নারী পুরুষ উভয়ের ক্ষেত্রে এটি হতে পারে। আপনি চাইলে খুব কম সময়ে চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় মাধ্যমে এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। চোখের নিচে কালো দাগ হওয়ার বিভিন্ন ধরনের কারণ থাকতে পারে। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক চোখের নিচে কালো দাগ হওয়ার কারণ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

জেনেটিক্স বা বংশগত
অনেক ক্ষেত্রে চোখের নিচে কালো দাগ বংশগত কারণেও হতে পারে। বিশেষ করে যাদের ত্বকের টোন গাঢ় তাদের মধ্যে এই লক্ষণ টি বেশি হতে পারে।

মানসিক চাপ ও দুশ্চিন্তা
অতিরিক্ত মানসিক চাপের কারণে চেহারায় বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। এর ফলে ত্বকের উজ্জ্বলতা নষ্ট হয়ে যায় এবং চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে যায়।

নিদ্রাহীনতা
বিশ্বের প্রায় ৮০ % লোকের চোখের নিচে কালো দাগ হওয়ার অন্যতম কারণ হলো নিদ্রাহীনতা। ঘুমের অভাবে ত্বক ফ্যাকাসে বর্ণের হয়ে যায়। পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুম না হলে চোখের নিচে বলি রাখা তৈরি হয় এবং কখনো কখনো চোখের নিচে গর্তের মতো কালো দাগ টি বেশি লক্ষ্য করা যায়। একজন প্রাপ্তবয়স্ক সুস্থ মানুষের জন্য দৈনিক ৬ থেকে ৮ ঘন্টা ঘুমানো উচিত। এই পরিমাণের কম ঘুম হলে চোখের নিচে কালো দাগ বা ফোলা ভাব সমস্যা দেখা দেয়।

ডিহাইড্রেশন বা পানি শূন্যতা
আমাদের শরীরের প্রায় ৭০% পানি। শরীরে পানির পরিমাণ কম থাকলে বিভিন্ন ধরনের রোগের পাশাপাশি ত্বকের ক্ষতি হয়। এছাড়াও ত্বক নিস্তেজ হয়ে পড়ে অথবা ত্বকের সজীবতা নষ্ট হয়ে যায়। এর ফলে চোখের নিচে কালো দাগ বা ডার্ক সার্কেল সৃষ্টি হয়। একজন সুস্থ মানুষের জন্য দৈনিক ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করা প্রয়োজন।

বার্ধক্য
বার্ধক্যের সঙ্গে সঙ্গে ত্বকে ডার্ক সার্কেল হওয়া স্বাভাবিক। সময়ের সাথে সাথে একজন মানুষের ত্বক মোটা হয়ে যায় এবং কোলাজেন ও চর্বি নষ্ট হয়ে যায়। এই কোলাজেন ও চর্বি ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা সুরক্ষার জন্য দায়ী। তাই এই প্রক্রিয়ায় রক্তনালীগুলো দৃশ্যমান হয় এবং চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে যায়।

এলার্জি
চোখে এলার্জি কারণে চোখের চারপাশে প্রদাহ এবং ফোলা ভাব তৈরি হয়। দীর্ঘদিন চোখে এলার্জি জনিত সমস্যা থাকলে চোখের নিচে ডার্ক সার্কেল অথবা কালো দাগ হয়।

সূর্যের ক্ষতিকর আলো
সূর্যের সংস্পর্শে ত্বকে মেলানিন বেশি পরিমাণে তৈরি হয়। মেলানিন ত্বকের গাঢ়, মোটা ও কালো করে তোলে। এর ফলে ত্বকে হাইপারট্রিটমেন্টেশন এবং চোখের নিচে কালো হয়ে যায়।

অপুষ্টি
পর্যাপ্ত পরিমাণে পুষ্টির অভাবে ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা সৃষ্টি হয়। অপুষ্ট জনিত কারণে রক্তশূন্যতা চোখের নিচে কালো দাগের তৈরি হয়। সুতরাং পুষ্টির অভাবে ত্বকের উজ্জ্বলতা হারায়।


নিম্নমানের প্রসাধনে
ত্বকে নিম্নমানের প্রসাধনী ব্যবহারে কারণে চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে যায়।

ঔষধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া
দীর্ঘদিন যাবত কোন ব্যথা নাশক বা অ্যান্টিবায়োটিক ঔষধ খেলেও চোখের নিচে কালো দাগ

চোখের নিচে কালো দাগ কোন রোগের লক্ষণ

চোখের নিচের কালো দাগ সাধারণত কোন নির্দিষ্ট রোগের লক্ষণ নয়। ত্বকের রং সম্পূর্ণ নির্ভর করে মেলানিন নামক এক ধরনের রঞ্জক পদার্থের ওপর। শরীরে যত বেশি পরিমাণ রঞ্জক পদার্থ থাকবে আপনার ত্বকের রং তত বেশি উজ্জ্বল হবে। অনেক ক্ষেত্রে চোখের নিচে কালো দাগ বিভিন্ন রোগের লক্ষণ বহন করে। উপরোক্ত বিষয়গুলোর আলোচনা থেকে জানতে পেরেছেন চোখে নিচে কালো দাগ হওয়ার কারণ সম্পর্কে।


বিশ্বে প্রায় ২০ থেকে ৩৫ শতাংশ মানুষ এই ডার্ক সার্কেল বা চোখের নিচে কালো এ রোগে ভোগেন। তবে অনেক ক্ষেত্রে বিভিন্ন রোগের প্রভাবে এবং পুষ্টি জনিত সমস্যা চোখের নিচে কালো দাগ হয়ে যায়। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক চোখের নিচে কালো দাগ কোন রোগের লক্ষণ।
  • ত্বকের বিশেষ কোনো চর্ম রোগের কারণে চোখের নিচে কালো দাগ হতে পারে। এছাড়া চর্মরোগে ত্বকে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দেয়।
  • শরীরে আয়রন অথবা রক্তশূন্যতার অভাব জনিত রোগের লক্ষণ হিসেবে চোখের নিচে কালো দাগ এ সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • থাইরয়েড রোগের ক্ষেত্রে চোখের নিচে কালো দাগ তৈরি হয়।
  • এছাড়াও ক্যান্সার HIV ইত্যাদি বড় ধরনের রোগের প্রভাবে শরীর অনেক ক্ষতি হয়। এ সকল রোগের কারণে শরীর দুর্বল ও ত্বক ফ্যাকাশে রক্তশূন্যতা ও চোখের নিচে কালো দাগ সৃষ্টি হয়।
  • কিডনি, লিভার ইত্যাদি ত্রুটি থাকলে চোখের নিচে কালো দাগ পড়তে পারে।
  • হাইপার পিগমেন্টেশন নামক স্বাস্থ্যগত অবস্থায় মেলানিনের অতিরিক্ত উৎপাদনের কারণে চোখের নিচে কালো দাগ তৈরি হয়।

চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায়

উপরোক্ত আলোচনা থেকে চোখের নিচে কালো দাগ হওয়ার কারণ গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। এখন আপনাদের মাঝে চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার  সহজ ঘরোয়া উপায় নিয়ে আলোচনা করব। চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় বা পদ্ধতি পদ্ধতিতে খুব অল্প সময়ে এ সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন।  

টমেটোঃ টমেটো চোখের নিচের কালো দাগ দূর করতে অত্যন্ত কার্যকর উপাদান। ২ চামচ টমেটোর পেস্ট অথবা রসের সঙ্গে সমপরিমান লেবুর রস মিশিয়ে ভালো করে পেস্ট তৈরি করে নিন। এই পেস্ট চোখের নিচে লাগিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। নিয়মিত এই পদ্ধতিতে চোখের নিচে ব্যবহার করলে অল্প কিছুদিনের মধ্যেই চোখের নিচে কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

কাঁচা আলুঃ আলু কুচি অথবা ব্লেন্ডারে পেস্ট তৈরি করে নিন। এই পেস্ট চোখের নিচে দাগের ওপর লাগিয়ে ১০মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এছাড়াও আপনি চাইলে আলু পেস্ট না করে শসার মত স্লাইস করে কেটে ব্যবহার করতে পারেন। সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার ব্যবহার করলেই ভালো উপকার পাবেন।

আমন্ড অয়েলঃ শরীরে বিভিন্ন স্পর্শকাতর ত্বকের জন্য আমন্ড অয়েলের উপকারিতা আছে। প্রতিরাতে ঘুমানোর আগে চোখের নিচে হালকা করে আমন্ড অয়েল মেখে ঘুমান। এরপর সকালে ঘুম থেকে উঠে ঠান্ডা পানি দিয়ে পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলুন। কয়েক সপ্তাহে ব্যবহারে চোখের নিচে কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

গোলাপ জলঃ প্রাকৃতিকভাবে গোলাপজল ত্বকের টোনার হিসেবে দারুণ কাজ করে। পরিষ্কার কাপড় অথবা তুলার সাহায্যে গোলাপজল ভিজিয়ে রাখুন কয়েক মিনিট। এবার চোখ বন্ধ করে চোখের পাতার উপর এবং চোখের নিচে রেখে দিন ১০-১৫ মিনিট। চোখের নিচে কালো দাগ দূর করতে অবশ্যই দিনে একবার করে ১০ থেকে ১২ দিন ব্যবহার করলে চোখের কালো রং দূর হয়ে যাবে।

শসাঃ শসা স্লাইস করে কেটে অথবা পেস্ট করে ফ্রিজে আইস তৈরি করুন। মিনিট দশেক চোখের উপরে বা চোখের নিচে রেখে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত তিন দিন এবং একটানা ৭ দিন ব্যবহার করুন। শসা আর লেবুর রস মিশিয়ে ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন। এতে আরো ভালো উপকার পাবেন।

কমলার রসঃ কমলার রসের সঙ্গে সামান্য পরিমাণ গ্লিসারিন মিশিয়ে চোখের নিচে কালো দাগে লাগিয়ে রাখুন। এটি চোখের নিচে কালো দাগ দূর করতে ভালো কাজ করে এবং চোখের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।


চায়ের ব্যাগ থেরাপিঃ চায়ের টি ব্যাগ ঠান্ডা করে চোখের কালো অংশে ওপর মিনিট পাঁচেক রেখে দিন। অল্প কিছুদিন ব্যবহারে দেখবেন চোখের নিচে কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

মধু ও লেবুর রসঃ মধু ও লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে চোখের কালো দাগের অংশ হালকা করে ম্যাসাজ করুন। রোদে পোড়া কালো দাগ দূর করতে এটি খুব ভালো পদ্ধতি।

কাঁচা দুধ ও হলুদঃ কাঁচা দুধের সঙ্গে সামান্য পরিমাণ হলুদ মিশিয়ে চোখের পাতা এবং চোখের নিচে লাগান। এতে করে খুব সহজেই চোখের নিচে কালো দাগ দূর করা সম্ভব।

টুথপেস্টঃ অল্প পরিমাণে টুথপেস্ট নিয়ে এর মধ্যে এলোভেরা জেল দিয়ে ভালো করে একটি প্যাক তৈরি করুন। এই প্যাকটি চোখের নিচে ১০ মিনিটের জন্য লাগিয়ে রাখুন এবং শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এভাবেই টানা ২১ দিন ব্যবহার করলে আপনি চোখের নিচে কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

কপি ও মধুঃ চোখের নিচে কালো দাগ দূর করতে আপনি কফি ও মধু ব্যবহার করতে পারেন। এক চামচ কফি পাউডার এর সঙ্গে সমপরিমাণ মধু মিশিয়ে একটি প্যাক তৈরি করে নিন। এই প্যাকটি চোখের নিচে সহকারে সম্পূর্ণ মুখে ভালোভাবে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এই প্যাকটি চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার পাশাপাশি মুখের কালো দাগ দূর করবে এবং তাকে উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করবে।

কোন ভিটামিনের অভাবে চোখের নিচে কালো দাগ হয়

উপরের আলোচনা থেকে এতক্ষণ আমরা চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া  উপায় এবং চোখের নিচে কালো দাগ হওয়ার কারণ সম্পর্কে জেনেছি। চলুন তাহলে এবার জেনে নেওয়া যাক কোন ভিটামিন অভাবে চোখের নিচে কালো দাগ হয় এবং কোন খাদ্যের পুষ্টি গুলোর অভাবে চোখের নিচে ডার্ক সার্কেল দেখা দেয়। যে ভিটামিন গুলোর অভাবে চোখের নিচে কালো দাগ দেখা যায় সেগুলো হলো
  • ভিটামিন ই
  • ভিটামিন কে
  • ভিটামিন বি ৬
  • ভিটামিন ডি
  • ভিটামিন ই
উপরের এ সকল ভিটামিন গুলো ছাড়াও আরো যে সকল খাদ্য উপকরণের কারণে চোখের নিচে কালো দাগ বা ডার্ক সার্কেল সমস্যা দেখা দেয় সেগুলো হল
  • আইরন
  • লোহা
  • লাইকোপিন
  • রক্তশূন্যতা
  • অ্যানিমিয়া
  • অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট

চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম

আপনি যদি চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম সম্পর্কে জানতে চান তাহলে এই পর্বটি আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আজকের এই আর্টিকেলে এই অংশের মাধ্যমে আপনি চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম গুলো সম্পর্কে জানতে পারবেন। অনেক সময় বিভিন্ন উপায় অবলম্বন করে চোখের নিচে কালো দাগ দূর করা সম্ভব হয়ে ওঠে না।


তবে চোখের কালো দাগ দূর করার ক্রিমগুলো ব্যবহার পূর্বে অবশ্যই সতর্ক থাকবেন কারণ চোখ একটি অত্যন্ত সেনসিটিভ স্থান, অনেক ক্ষেত্রে চোখের কালো দাগ দূর করতে গিয়ে সেন্সিটিভ স্থানগুলোতে যাতে ক্ষতি না হয় সেদিকে অবশ্যই লক্ষ্য রাখবেন। এছাড়াও আপনি চাইলে ঘরোয়া উপকরণ দিয়ে চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় এ সমস্যা সমাধান করতে পারবেন। এর ফলে ক্রিমের মাধ্যমে চোখের কালো দাগ গুলো দূর করতে হয়। চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম গুলো নিচে আলোচনা করা হলোঃ
  • Aroma Magic Under Eye Gel
  • Himalaya Herbals under Eye Cream
  • VLCC Almond Cream
  • lotus Herbal eye gel
  • Bio bloom natural under eye gel
  • Cosrx Advanced Snail Peptide eye cream

চোখের নিচে কালো দাগ কমানোর উপায়

চোখের নিচে কালো দাগ কমানোর কিছু কার্যকর টিপস নিচে তুলে ধরা হলোঃ
  • ধূমপান পরিহার করুন।
  • পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমানোর অভ্যাস গড়ে তুলুন। দৈনিক কমপক্ষে ৬ থেকে ৮ ঘন্টা ঘুমাতে হবে। পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন। তবে রাতে ঘুমানোর আগে কম পরিমাণে পানি পান করার চেষ্টা করুন।
  • বিভিন্ন ধরনের ঔষধ ব্যবহারের ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করুন।
  • মৌসুমী শাকসবজি ও ফলমূল বেশি পরিমাণে খাওয়ার অভ্যাস করুন।
  • অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা এবং মানসিক চাপ থেকে বিরত থাকুন।
  • চোখ চুলকানো একেবারে বাদ দিতে হবে। চোখে ঠান্ডা সেক দিতে পারেন।
  • রোদে বাহিরে বের হলে অবশ্যই সানগ্লাস এবং ছাতা ব্যবহার করুন।
  • পর্যাপ্ত পরিমাণে বিশ্রাম নিন।
  • দীর্ঘ সময় কম্পিউটার বা ফোনের স্ক্রিনে তাকিয়ে থাকবেন না।

শেষ কথা

প্রিয় বন্ধুরা চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায় গুলোর সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পেরেছেন। আজকেরে আর্টিকেলে চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার সহজ ঘরোয়া উপায়, চোখের নিচে কালো হওয়ার কারণ, চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম, চোখের নিচে কালো দাগ কোন রোগের লক্ষণ এ সকল বিষয় নিয়ে বিস্তারিত তথ্য আলোচনা করা হয়েছে। তাই সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পরে উপকৃত হবেন।

এ ধরনের প্রয়োজনীয় মূলক তথ্য পেতে নিয়মিত আমার লেখা আর্টিকেল পড়ুন। আজকেরে আর্টিকেলটি পড়ে যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করবেন। সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url