কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায় বিস্তারিত জানুন

 

প্রিয় পাঠক, আপনার কালো ঠোঁট নিয়ে কি চিন্তিত? বিভিন্ন ধরনের কসমেটিক্স পণ্য বা ক্রিম ব্যবহার করেও সমাধান করতে পারছেন না। তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য। আপনি কি কালো ঠোট গোলাপি করার সহজ উপায় কিংবা মেয়েদের ঠোঁট গোলাপি করার উপায় সম্পর্কে কিছুই জানেন না। আজকেরে আর্টিকেলে কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাহলে জেনে নেওয়া যাক কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।
কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায়
আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়লে কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায় সম্পর্কে প্রয়োজনের তথ্য জানতে পারবেন।আপনাদের সুবিধার্থে ঠোঁট গোলাপি করার উপায় সম্পর্কে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে এ আর্টিকেলে।  দেরি না করে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন এবং বিস্তারিত তথ্য জেনে নিন।

ভূমিকা

মুখের সৌন্দর্যের অন্যতম অঙ্গ ঠোঁট। গোলাপি ঠোঁট পছন্দ করে না এমন মানুষের সংখ্যা নেই বলতেই চলে। সবাই গোলাপি ঠোট পছন্দ করে। কিন্তু সবার ঠোঁট গোলাপী নয়। তবে এর পেছনে অনেক কারণ থাকতে পারে। কিন্তু অযত্নের কারণেই অনেকেরই ঠোঁট কালো হয়ে থাকে। এছাড়াও ঠোঁটের যত্নে সঠিক পণ্য ব্যবহার না করলে ঠোঁট কালো হতে পারে। কালো রঙের ঠোঁটের জন্য অনেকেই তীব্রতকর বিব্রতকর অবস্থায় অবস্থায় পড়তে হয়।
তাই ঠোঁটের এই কালো রং দূর করতে বিভিন্ন ধরনের পণ্য ব্যবহার করেও স্থায়ী সমাধান হয় না। তবে আপনি জানেন কি কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায় এ ঠোঁট কে গোলাপি করা সম্ভব। তাই সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ে ঠোঁট গোলাপি করার বিস্তারিত তথ্য জেনে নিন।

ঠোঁট কালো হওয়ার কারণ

সুন্দর নরম ও গোলাপি ঠোঁট কে না চায়। কিন্তু মুখের সৌন্দর্যে কালো ঠোঁট দেখতে একেবারে বেমানান লাগে। ঠোঁট কালো হওয়ার বিভিন্ন ধরনের কারণ থাকতে পারে। তবে হঠাৎ করে ঠোঁট কালো হওয়ার অন্যতম একটি কারণ হল অতিরিক্ত ধূমপান করা। এছাড়াও ঠোঁট কালো হওয়ার কিছু কারণ রয়েছে যেগুলো নিচে আলোচনা করা হলো-
  • নিম্নমানের লিপস্টিক ব্যবহার করা।
  • ধূমপান ও মাদকদ্রব্য সেবন করা।
  • দীর্ঘ সময় ধরে রোদে থাকা।
  • শরীরে পানি শূন্যতা থাকলে।
  • ঠোঁটে অতিরিক্ত চামড়া উঠলে।
  • বংশগত কারণে।
  • কোমোথেরাপি।
  • কোনো ঔষধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া।
  • প্রেগনেন্সিতে হরমোনাল পরিবর্তন।
  • দীর্ঘদিন শারীরিক অসুস্থতা জনিত কারনে।

মেয়েদের ঠোঁট গোলাপি করার উপায়

সুন্দর কোমল গোলাপি ঠোঁট কোন মেয়ে না চায়। কিন্তু ঠোঁটকে গোলাপি করতে গিয়ে অধিকাংশ নারীরা দামি অথবা কম দামি কসমেটিক্স পণ্য বা রাসায়নিক প্রোডাক্ট ব্যবহার করে থাকেন যা ঠোঁটের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকারক। যদিও আধুনিক জীবনযাপন পদ্ধতি, খাদ্যাভ্যাস, অতিরিক্ত রোদ, ও ধূমপানসহ বিভিন্ন কারণে ঠোঁট কালো হয়ে যায়। অনেকেই চিন্তা করেন একবার ঠোঁট কালো হয়ে গেলে আবার আগের রং ফিরিয়ে আনা বেশ কঠিন এবং খরচ সাপেক্ষ। তাই ঠোঁটকে এই ক্ষতির হাত থেকে বাঁচাতে অথবা মেয়েদের ঠোঁট গোলাপি করার উপায় রয়েছে যা ব্যবহার করতে পারেন।

চিনি ও লেবুর ক্রাব
এক টুকরো লেবুর উপরে চিনি দিয়ে আস্তে আস্তে ঘষে নিন ঠোঁটের ওপর। ৫ মিনিট ম্যাসাজ করে নিন। চিনি ঠোঁটের স্ক্র্যাবারের কাজ করে। চিনি ঠোঁটের মরা চামড়া গুলোকে দূর করতে সাহায্য করে আর লেবু ঠোঁটের কালো হয়ে যাওয়া চামড়াকে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে।

গ্লিসারিন
নিয়মিত দিনে ও রাতে গ্লিসারিন ব্যবহার করলে ঠোঁট গোলাপি করা পাশাপাশি নরম করতে সাহায্য করে। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার সময় ঠোঁটে গ্লিসারিন মাখিয়ে সারারাত রাখুন। এতে ঠোঁট আদ্র থাকবে এবং শুষ্কতা দেখা দিবে না।

গোলাপ জল
তুলার সাহায্যে গোলাপজল মিশিয়ে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ঠোঁটে লাগান। এতে ঠোঁটের রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পাবে এবং ঠোঁট ফাটা দূর হবে। এছাড়াও ঠোঁটের কালো দাগ দূর করে ঠোঁটকে গোলাপি করতে সাহায্য করে।
নারকেল তেল 
ঠোঁটের কালো দাগ দূর করে ঠোঁটকে গোলাপি করতে নারিকেল তেল খুবই কার্যকরী। নারিকেল তেলে ফ্যাটি এসিড রয়েছে যা ঠোঁটের কালচে ভাব দূর করতে সাহায্য করে। এছাড়াও অলিভ অয়েল, ক্যাস্টর অয়েল, আমন্ড অয়েল ইত্যাদি তেলেও ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে। নিয়মিত এই তেল গুলো ব্যবহার করলে ঠোঁট গোলাপি করতে সাহায্য করবে।

মধু ও লেবুর রস
১ চামচ মধুর সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি আপনার ঠোঁটে লাগিয়ে ১৫ থেকে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। লেবুর রস কালো দাগ দূর করে ঠোঁটকে গোলাপি করতে সাহায্য করে এবং মধু তে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করে।

অ্যালোভেরা ও শসা
অ্যালোভেরা ও শসার রস বেশ উপকারী। নিয়মিত শসা ও অ্যালোভেরা ব্যবহারের ফলে ঠোঁটের রং গোলাপী করতে সাহায্য করে। শসা ও অ্যালোভেরা পেস্ট তৈরি করে ঠোঁটে ব্যবহার করুন। ঠোঁটের কালো দাগ দূর করতে শসায়তা করে।

কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায় 

আকর্ষণীয় গুলাপি ঠোঁট নিমিষে মুখের সৌন্দর্য বাড়িয়ে দিতে পারে বহু গুণ। ঠোঁট কালচে হয়ে গেলে স্বাভাবিকভাবেই সৌন্দর্য কমে যায়। তবে অনেকেরই ঠোঁট কালো এর জন্য বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়। এই ঠোটের এই কালো দাগ ঢেকে রাখতে অনেকেই গারো রংয়ের লিপস্টিক ব্যবহার করে। এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের লিপ বাম অথবা লিপ জেল ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু এগুলো সবই অস্থায়ী সমাধান। অনেকেই কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায় সম্পর্কে জানেনা। তাই ঘরোয়া উপাদান দিয়ে প্রাকৃতিকভাবে ঠোঁট গোলাপি করার উপায় নিয়ে আজকের এই পোস্ট।

কাঁচা হলুদ ব্যবহার করেঃ দীর্ঘদিন ধরে ত্বকের যত্নে কাঁচা হলুদের ব্যবহার হয়ে আসছে । এছাড়াও এটি ঠোঁটের রং গোলাপি করতেও সাহায্য করেন। দুধের সরের সঙ্গে কাঁচা হলুদ মিশিয়ে ঠোঁটে লাগিয়ে রাখুন। মিশ্রণটি শুকিয়ে গেলে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। সপ্তাহে ২ থেকে ৩ দিন ব্যবহার করলেই ভালো ফলাফল পাবেন।

লেবু ও চিনি ব্যবহার করেঃ এক টুকরো লেবুর সঙ্গে চিনি মিশিয়ে ঠোঁটে ভালো করে ম্যাসাজ করুন। ১০ থেকে ১৫ মিনিট রেখে অপেক্ষা করুন। এরপর হালকা কুসুম গরম পানিতে ঠোঁট পরিষ্কার করে নিন। প্রাকিতিক ব্লিচ হিসেবে কাজ করে লেবুর রস। এই পরিচর্যা রাতে ঘুমানোর আগে করুন।

বিটরুট ব্যবহার করেঃ ঠোঁটকে গোলাপি করতে বিটরুট দারুণ উপকারী। বিটরুন থেকে রস বের করে এর সঙ্গে মেশান কাঁচা দুধ বা দুধের সর। ভালো করে মিশ্রণ তৈরি করে ঠোটে ব্যবহার করুন। মিনিট পাঁচেক অপেক্ষা করে পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলুন। এভাবেই নিয়মিত ব্যবহার করতে পারলে ঠোঁট দ্রুত গোলাপি হবে।
আমন্ড তেল ব্যবহার করেঃ আমন্ড তেলের অনেক উপকারিতা রয়েছে। এছাড়া এই তেলে আরেকটি উপকারিতা হলো ঠোঁট গোলাপি করতে সহায়তা করে। নিয়মিত রাতে ঘুমানোর আগে আমন্ড তেল মাসাজ করলে ঠোঁট গোলাপি করার পাশাপাশি ঠোঁটফাটা দূর করতে সাহায্য করে।

বেদানার রস ব্যবহার করেঃ বেদানা শুধু যে আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী তা কিন্তু নয়, এটি ঠোঁটকে গোলাপি করতেও সাহায্য করে। ঠোঁটের যত্নে বেদনার রস, দুধের সর ও গোলাপজল একসাথে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এই মিশ্রণটি ঠোঁটের উপর ম্যাসাজ করুন কিছু সময়। এরপর পরিষ্কার করে ধুয়ে লিপ বাম অথবা পেট্রোলিয়াম জেলি ব্যবহার করুন।

গোলাপের পাপড়ি ব্যবহার করেঃ গোলাপের পাপড়ি ত্বকের যত্নে ব্যবহার করা হয়। গোলাপের পাপড়ি পেস্টের সঙ্গে কিছু মিল্ক ক্রিম মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এই মিশ্রণটি আপনার ঠোঁটে ১০ থেকে ১৫ মিনিটের জন্য রেখে দিন। পরিষ্কার ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই মিশ্রণের সঙ্গে মধু মিশিয়ে নিয়মিত ঠোঁটে ব্যবহার করতে পারবেন।

কালো ঠোঁট গোলাপি করার ক্রিম

আজ এই আর্টিকেলে আপনাদেরকে জানাবো কালো ঠোট গোলাপি করার ক্রিম যা ব্যবহার করে ঠোঁটকে আকর্ষণীয় ভাবে গোলাপি করে তুলবে। SCRU CREAM ঠোঁটকে গোলাপী করার পাশাপাশি ঠোঁট ফাটা দূর করতেও দারুণ উপকারী। আমাদের ঠোঁটে স্ক্রাব ব্যবহার করার ফলে ঠোঁটের কালো যে দাগ থাকে সে দাগটা ধীরে ধীরে কমে যায়। নিয়মিত SCRU CREAM ব্যবহারের ফলে ঠোঁটকে সুন্দর ও আকর্ষণীয় করে তোলে।
ঠোঁটের যত্ন নিলে ধীরে ধীরে আপনার ঠোঁটের পিগমেন্টেশন কমে যাবে এবং আপনার ঠোঁট পার্মানেন্ট গোলাপি হতে শুরু করবে। এই ক্রিমটি আপনি যে কোন ফার্মেসিতে দোকানে কিনতে পারবেন এবং এটার মূল্য ৮০ টাকা। এই ক্রিমটি ব্যবহারের ৭ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে ঠোঁট গোলাপি করে তুলবে। এই ক্রিমটি ধীরে ধীরে ঠোঁটের কালো দাগ দূর করে ঠোঁটকে গোলাপি করে।

নিয়মিত রাতে ঘুমানোর সময় ব্যবহার করতে হবে। সকালে উঠে হালকা মাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারেই ১০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যেই একটা ভালো রেজাল্ট পেয়ে যাবেন আশা করি। এছাড়াও কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায়  জানতে আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ার চেষ্টা করুন।

ঠোঁট গোলাপি করার ঔষধ

অনেকেই ঠোঁট গোলাপি করার ঔষধ সম্পর্কে জানতে চাই। ঠোঁটে ব্যবহার করার কোন ঔষধ নেই তবে কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায় এবং ক্রিম রয়েছে। যেগুলো নিয়মিত ব্যবহারে ফলে ঠোঁটকে গোলাপি করে তুলে। নিয়মিত গোলাপজল, মধু, গ্লিসারিন ইত্যাদি উপাদান গুলো একসাথে মিশিয়ে ঠোঁটে ব্যবহার করুন। এছাড়াও লেবুর রস ও চিনি একসাথে মিশিয়ে ঠোঁটে ক্রাব করুন। এছাড়াও ঘুমানোর আগে ঠোঁট ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিন যাতে কোন ধরনের ময়লা না থাকে।

এই উপায় গুলো ঠোঁট এবং স্বাস্থ্যের জন্য উপকার সেগুলো ব্যবহার করতে হবে।কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায় ও কালো ঠোঁট গোলাপি করার ক্রিম ব্যবহার করতে হবে। ধূমপান থেকে বিরত থাকতে হবে। নিয়মিত পরিমান মত খাবার এবং পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করুন। বেশি বেশি শাকসবজি খাওয়ার অভ্যাস করুন। ঠোঁট গোলাপি করার ঔষধ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনার মাধ্যমে জানানোর চেষ্টা করেছি।

শেষ কথা

আজকের আর্টিকেলে কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায় এবং মেয়েদের ঠোঁট গোলাপি করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আশা করি সম্পূর্ণ পোস্টটি আপনি বুঝতে পেরেছেন কালো ঠোঁট গোলাপি করার সহজ উপায় সম্পর্কে এবং উপকৃত হয়েছেন। এই ধরনের আরো প্রয়োজনীয় তথ্য জানতে নিয়মিত আমার লেখা আর্টিকেলগুলো পড়ুন। সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং আপনার কোন মতামত বা কোন কিছু জানতে প্রয়োজন হলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url